বাসযাত্রী নারীকে দলবদ্ধ ধর্ষণ, চালকসহ গ্রেপ্তার ২

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এক বাসযাত্রী নারীকে (৪০) ধর্ষণের ঘটনায় বাসচালকসহ দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) রাতে সদর মডেল থানা পুলিশের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া এক্সপ্রেস বাসের চালক শিবপুর উপজেলার ঘাশিরদিয়া গ্রামের মোখলেছুর রহমানের ছেলে নজরুল ইসলাম (২৬) এবং সদর উপজেলার রামরাইল ইউনিয়নের বিয়াল্লিশ্বর গ্রামের টিম্বার মিলের মালিক তাজুল ইসলামের ছেলে কেফায়েত উল্লাহ তামিম (২১)।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছে সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমরানুল ইসলাম জানান, শুক্রবার রাতে ঢাকা থেকে আখাউড়ার খরমপুর মাজারে যাওয়া উদ্দেশে এক নারী (৪০) ব্রাহ্মণবাড়িয়া এক্সপ্রেস নামের একটি বাসে ওঠেন। মধ্যরাতে এসে জেলা শহরের কাউতুলী এলাকায় বাস থেকে নামেন। রাত হয়ে যাওয়ায় সেখান থেকে তিনি আখাউড়া যেতে কোনো যানবাহন পাচ্ছিলেন না। কিছুক্ষণ পর ব্রাহ্মণবাড়িয়া এক্সপ্রেস কোম্পানির আরেকটি বাস কাউতুলী মোড়ে এসে দাঁড়ায়। এ সময় আখাউড়ায় পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে এক স্টাফ সেই নারীকে বাসে ওঠায়৷ কিছুদূর যাওয়ার পর ভাদুঘর এলাকায় সেই নারীকে বাসের চালক নজরুল ও বাসের স্টাফ জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। পরবর্তীতে সেই নারীকে জোরপূর্বক রামরাইল ইউনিয়নের বিয়াল্লিশ্বরে তামিম টিম্বার মিলের ভেতরে নিয়ে তারা আবার ধর্ষণ করে। ঘটনাটি দেখে ফেলায় টিম্বার মিলের মালিকের ছেলে কেফায়েত উল্লাহ তামিম তার বন্ধুবান্ধবদের নিয়ে সেই নারীকে ধর্ষণ করে।

তিনি আরও জানান, অভিযুক্তরা ধর্ষণের শিকার নারীকে ঢাকায় পাঠিয়ে দেওয়ার কথা বলে কাউতুলী এলাকায় এনে ছেড়ে দেয়। সেখান থেকে তিনি সদর মডেল থানায় এসে বিস্তারিত জানান। পরে তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত বাসচালক নজরুল ও টিম্বার মিলের মালিকের ছেলে তামিমকে গ্রেপ্তার করা হয়। অন্য আসামিদের গ্রেপ্তার করতে অভিযান অব্যাহত আছে। ভিকটিমকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এই ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।